• ১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ১১ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

বিয়ানীবাজারে বুদ্ধিপ্রতিবন্ধি ছাত্রকে নির্যাতন

Daily Jugabheri
প্রকাশিত নভেম্বর ১৪, ২০২০
বিয়ানীবাজারে বুদ্ধিপ্রতিবন্ধি ছাত্রকে নির্যাতন

নিজস্ব সংবাদদাতা, বিয়ানীবাজার :::
বিয়ানীবাজার উপজেলার তিলপাড়া ইউনিয়নের দাসউরা গ্রামে ৩য় শ্রেণীর এক বুদ্ধিপ্রতিবন্ধি ছাত্রকে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় উপজেলা জুড়ে তোলপাড় চলছে।
জানা যায়, গতকাল সকালে ঘটনার প্রতিবাদে এলাকাবাসী জমায়েত হলে ঘটনাটি সর্বত্র চাউর হয়। নির্যাতনের শিকার আহবাবুর রহমান স্থানীয় একটি কিন্ডার গার্টেনে লোখাপড়া করে। তার পিতার নাম শহিদুর রহমান। সে বুদ্ধি প্রতিবন্ধি বলে স্থানীয়ভাবে জানা গেছে।
এলাকাবাসীরা জানান, গত ৯ নভেম্বর বিকেলে আসরে নামাজ পড়তে বের হয় আহবাব। তখন তার গতিরোধ করে মুখ চেপে ধরে একটি পরিত্যক্ত ঘরে নিয়ে যায় এলাকার বখাটে কিশোর রেদওয়ান (১৭)। সে পশ্চিম দাসউরা এলাকার ফৈয়াজুর রহমান এর ছেলে। রেদওয়ান মাদ্রসায় লেখাপড়ায় করলেও তার বিরুদ্ধে অভিযোগের শেষ নেই। অসংখ্য বখাটেপনা আচরণের কারণে এলাকার মানুষ তার উপর চরম বিরক্ত।
এ বিষয়ে আহবাবের চাচা ইউপি সদস্য আনসার উদ্দিন বলেন, ওই পরিত্যক্ত ঘরে নিয়ে গিয়ে সুঁতলি দিয়ে তার ভাতিজার হাত-পা বেঁধে মুখের ভিতরে খড় গুঁজে দেয় রেদওয়ান। শুধু তাই নয়, আহবাবের বুকের ওপর ওঠে চাপ দিয়ে তাকে হত্যার চেষ্টা এবং ব্যাপক মারধর করে। পরে রেদওয়ান তার মুখে পশ্রাব করে দেয়। এশার নামাজের পর বেঁেচ থাকলে আহবাবকে ছেড়ে দেয়া হবে জানিয়ে চলে যায় রেদওয়ান। সন্ধ্যার সময় আহবাব হাতের বাধঁন খুলে কোনমতে বাড়ি গেলে সেখানেই সে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। পরবর্তীতে তাকে বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন পরিবারের সদস্যরা।
এ ধরণের ঘটনার কারণ জানতে চাইলে এলাকার মুরব্বি আনসার উদ্দিন ও খায়রুল ইসলাম জানান, আহবাব বুদ্ধি প্রতিবন্ধি কারণে তার কাছ থেকে প্রায়ই টাকা-পয়সা নিতো রেদওয়ান। ঘটনার আগের দিনও সে আহবাবের কাছে ক্রিকেট ব্যাট কেনার কথা বলে ১২শ’ টাকা চায়। ওই টাকা না পাওয়ায় তাকে নির্যাতন করে রেদওয়ান। ঘটনার প্রতিবাদে দাসউরা এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে প্রতিবাদ সভা করা হয়। প্রতিবাদ সভায় ঘটনায় জড়িত রেদওয়ানের বিচার দাবী করা হয়।
এদিকে ঘটনার পর বিয়ানীবাজার থানায় রেদওয়ানকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন আহবাবের চাচা ও ইউপি সদস্য আনসার উদ্দিন।
এ বিষয়ে বিয়ানীবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার হিল্লোল রায় জানান, এ ঘটনায় বিয়ানীবাজার থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। আমরা ইতিমধ্যে তদন্ত করার জন্য ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে অভিযোগের সত্যতা পাই। আমরা অভিযুক্তের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

সংবাদটি শেয়ার করুন