• ২৬শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ১৮ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

কানাইঘাটে শালিস চলাকালে দুইপক্ষের সংঘর্ষে আহত-১০ : থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

Daily Jugabheri
প্রকাশিত মে ২০, ২০২১
কানাইঘাটে শালিস চলাকালে দুইপক্ষের সংঘর্ষে আহত-১০ : থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

কানাইঘাট প্রতিনিধিঃ
কানাইঘাট লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউনিয়নের বাউরভাগ ২য় খন্ড গ্রামে গত মঙ্গলবার সালিশ বিচার চলাকালে হিন্দু সম্প্রদায়ের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে অত্যন্ত ১০জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে ৬জনকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় কানাইঘাট থানায় দুই পক্ষই অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে জানা গেছে। সরজমিনে জানা যায় বাউরভাগ ২য় খন্ড গ্রামের মৃত লবঙ্গ মোহনের ছেলে লনী গোপাল বৈদ্যের সাথে চাচাতো ভাই প্রমুদ বৈদ্যার ছেলে মাখন বৈদ্য গংদের মধ্যে জমিজমা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। বেশ কয়েকবার এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উভয় পক্ষের বিরোধ মিমাংসা করার জন্য চেষ্টা করলেও লনী গোলাপ বৈদ্য গংরা সালিশে সাড়া দেয়নি। গত কয়েকদিন পূর্বে লনী গোপাল বৈদ্য গংরা মাখন বৈদ্য বসত বাড়ীর কিছু জায়গার উপর জোর পূর্বক ভাবে বাশের বেড়া দিয়ে বাড়ীর লোকজনের যাতায়াতে প্রতিবন্ধকতা করলে এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে গত সোমবার উত্তেজনা দেখা দেয়। বিষয়টি মিমাংসা করার জন্য লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান জেমস লিও ফারগুশন নানকা ও সাবেক চেয়ারম্যান ফারুক আহমদ চৌধুরী, বর্তমান ইউপি সদস্য আব্দুল মালিক ও সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুল খালিক সহ অনেকে উদ্দ্যেগ নেন। এ নিয়ে গত মঙ্গলবার সকাল ১১টায় তারা বাউরভাগ ২য় খন্ড গ্রামের মৃত তবারক আলীর পুত্র হারুন রশিদ দর্জির বাড়ীতে উভয় পক্ষকে নিয়ে সালিশে বসেন। এক পর্যায়ে কথা কাটাকাটি নিয়ে দুপুর ১টার দিকে লনী গোলাপ বৈদ্য ও মাখন বৈদ্য গংরা সালিশ চলাকালে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। লাঠি সোটা নিয়ে এক পক্ষ আরেক পক্ষের উপর হামলা করলে এতে গুরুতর আহত হন এক পক্ষের মাখন বৈদ্য, আশু বৈদ্য (৪৫), অধীর বৈদ্য, (৩৫) সুধির বৈদ্য, (৪০) অজয় বৈদ্য, (২৫) নিপেষ বৈদ্য, (৪০), এবং অপর পক্ষের লনী গোপাল বৈদ্য (৫৫), চন্দন বৈদ্য (২৫) সানা বৈদ্য ও আব্দুর রকিব। সংঘর্ষে থামাতে গিয়ে আহত হন ইউপি সদস্য আব্দুল মালিক, আলা উদ্দিন সহ কয়েকজন। আহতের মধ্যে মাখন বৈদ্যার পক্ষের ৪জন কে গুরুতর অবস্থায় এবং অপর পক্ষের লনী গোপাল বৈদ্য চন্দন বৈদ্যাকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এলাকার মুসলিম ও হিন্দু সম্প্রদায়ের অধিকাংশ লোকজন জানিয়েছেন মাখন বৈদ্যের পরিবারকে দীর্ঘদিন ধরে লনী গোপল বৈদ্য নানা ভাবে হয়রানী সহ তাদের পৈত্রিক জমি জমা থেকে উচ্ছেদ ও দখল করার জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছে। জন প্রতিনিধি সহ এলাকার মুরব্বীরা বার বার উভয় পক্ষের বিরোধ নিষ্পত্তির জন্য চেষ্ট করলেও লনী গোপাল বৈদ্য সালিশ বিচার মানে নি। গত মঙ্গলবার সালিশ বিচার চলাকালে সম্পুর্ন অন্যায় ভাবে লনী গোপাল বৈদ্যর পরিবারের লোকজন ও তাদের সাথে আসা আব্দুর রকিব নিরীহ মাখন বৈদ্যার পক্ষের লোকজনের উপর হামলা চালালে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত মাখন বৈদ্যর ভাই সুধির বৈদ্য বাদী হয়ে গত কাল বুধবার কানাইঘাট থানায় লনী গোপাল বৈদ্য সহ ৭জনকে আসামী করে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। এছাড়া লনী গোপাল বৈদ্যার ছেলে দিলীপ বৈদ্য বাদী হয়ে মাখন বৈদ্যর পক্ষের কয়েক জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ থানায় দিয়েছেন। স্থানীয় এলাকাবাসী সরজমিন তদন্ত পূর্বক সালিশ বিচার চলাকালে যারা হামলা চালিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে আইনানু ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন