• ২০শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৭ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ১১ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

কানাইঘাট সীমান্ত এলাকায় কঠোর হস্তে চোরাচালান প্রতিরোধে প্রশাসনের বিশেষ সভা অনুষ্ঠিত

Daily Jugabheri
প্রকাশিত নভেম্বর ৫, ২০২১
কানাইঘাট সীমান্ত এলাকায় কঠোর হস্তে চোরাচালান প্রতিরোধে প্রশাসনের বিশেষ সভা অনুষ্ঠিত

কানাইঘাট প্রতিনিধিঃ
সিলেটের কানাইঘাট সীমান্তবর্তী এলাকায় কঠোর হস্তে চোরাচালান প্রতিরোধ করার লক্ষে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে এক বিশেষ সভা বুধবার দুপুর ১২ টায় উপজেলা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুমন্ত ব্যানার্জীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায়, বিজিবি কর্মকর্তা, থানা পুলিশ, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, ব্যবসায়ী সমিতি ও পরিবহণ সংগঠনের নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে নির্বাহী কর্মকর্তা সুমন্ত ব্যানার্জী ও উপজেলা সহকারী কমিশনানর (ভূমি) মুনমুৃন নাহার আশা বলেন, সুরইঘাট সীমান্ত এলাকা দিয়ে ভারতে মটরশুটি পাচার ও ভারত থেকে অবৈধ ভাবে চোরাকারবারী কর্তৃক মাদক দ্রব্য সহ নাসির বিড়ি, ইয়াবা ইত্যাদি মালামাল যাতে করে আসতে না পারে এজন্য স্থানীয় প্রশাসন কঠোর অবস্থানে রয়েছে। এখন থেকে প্রশাসন সীমান্ত এলাকায় সব ধরণের চোরাচালন প্রতিরোধে প্রয়োজনে চোরাকারবারী ও অবৈধ ভাবে যারা হাট বাজারে, বাসা বাড়িতে মটরশুটি গুদাম জাত করবে তাদের বিরুদ্ধে আইন আনুগ ব্যাবস্থা মোবাইল কোর্ট সহ জেল জরিমানা করা হবে। এক্ষেত্রে বিজিপি ও থানা পুলিশকে আরো কঠোর হতে হবে। সীমান্ত এলাকায় মটরশুটি পাচার বন্ধে টহল জোরদারের পাশাপশি চেকপোস্ট পরিচালনা করতে হবে। নির্বাহী কর্মকর্তা চোরাচালান প্রতিরোধে প্রশাসনকে সহযোগিতা করার জন্য জনপ্রতিনিধি, বাজার ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দ ও পরিবহণ সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সহযোগিতা কামনা করে বলেন, যাতে বাজারে মটরশুটি মজুদ, ভারতে পাচার এবং চোরাচালানের মালামাল পরিবহণে কোন ধরণের যানবাহন ব্যবহার না হয় সে দিকে সজাগ দৃষ্টি রাখার আহবান করেন। চোরাচালান প্রতিরোধে বিশেষ এ সভায়, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, ব্যাবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দ, পরিবহণ শ্রমিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, চোরাচালান প্রতিরোধে প্রশাসনকে সর্বাত্বক সহযোগিতার আশাস্ব প্রদান করেনর। বাজারে মটশুটি মজুদকারী এবং কোন যানাবাহন চোরাচালানের মালামাল ও মটরশুটি বহন করলে তাদের তথ্য দিয়ে প্রশাসনকে তারা সহযোগিতা করবেন। সভায় সীমান্ত এলাকায় বেপরোয়া চোরাচালান প্রতিরোধে চিহ্নিত চোরাকারবারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যাবস্থা গ্রহণ করলে চোরাচালান নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে বলে অনেকেই অভিমত ব্যাক্ত করেন। বিশেষ এ সভায় উস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান খাদিজা বেগম, লক্ষীপ্রসাদ পূর্ব ইউপির চেয়ারম্যান ডাক্তার ফয়াজ উদ্দিন, লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপির চেয়ারম্যান জেমস লিও ফারগুসন নানকা, বড় চতুল ইউপির চেয়ারম্যান মাও: আবুল হোসাইন চতুলী, সুরইঘাট বিজিবি ক্যাম্পের কোম্পানি কামান্ডার নজরুল ইসলাম, আটগ্রাম বিজিবি ক্যাম্পের হাবিলদার মাজেদ আলী, কানাইঘাট থানার সেকেন্ড অফিসার রনজিত দাস, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, কানাইঘাট বাজার বণিক সমিতির সভাপতি আলতাফ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হেকিম শামীম, বীর মুক্তিযোদ্ধা আফতাব উদ্দিন, চতুল বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জাহেদুল ইসলাম রুবেল, সুরইঘাট বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক সুলেমান আহমদ, কানাইঘাট দক্ষিণ বাজার আটো রিক্সা শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি জুনেদ হাসান জীবান, চতুল বাজার সিএনজি স্ট্যান্ডের সভাপতি মো: আলমগীর, সাধারণ সম্পাদক সেলিমুর রহমান সহ শ্রমিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

সংবাদটি শেয়ার করুন