• ২৫শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ১১ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ১৯শে জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

ওমিক্রন : শনাক্ত দেশ থেকে যাত্রী আসা বন্ধের সুপারিশ

Daily Jugabheri
প্রকাশিত নভেম্বর ২৮, ২০২১
ওমিক্রন : শনাক্ত দেশ থেকে যাত্রী আসা বন্ধের সুপারিশ

যুগভেরী ডেস্ক
সাউথ আফ্রিকায় শনাক্ত হওয়া করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন ইতোমধ্যে যেসব দেশে শনাক্ত হয়েছে, সেগুলো থেকে যাত্রী আগমন বন্ধের সুপারিশ করেছে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি।
কমিটির ৪৮তম সভা শেষে রোববার বিকেলে চার দফা সুপারিশ করা হয়।
কমিটি বলছে, করোনার নতুন একটি ধরন সাউথ আফ্রিকা থেকে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এই ধরনের নাম দিয়েছে ‘ওমিক্রন’।
এর বিস্তার রোধে এশিয়া, ইউরোপ ও আমেরিকার অনেক দেশ সাউথ আফ্রিকাসহ সে অঞ্চলের দেশ জিম্বাবুয়ে, নামিবিয়া, বতসোয়ানা, সোয়াজিল্যান্ড থেকে যাত্রী আগমনের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে।
চার সুপারিশ
১. যেসব দেশে ওমিক্রনের সংক্রমণ ছড়িয়েছে, সেগুলো থেকে বাংলাদেশেও যাত্রী আগমন বন্ধ করতে হবে।
২. কোনো ব্যক্তির এ সমস্ত দেশে ভ্রমণের সাম্প্রতিক (বিগত ১৪ দিন) ইতিহাস থাকলে তাদের বাংলাদেশে ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে; কোভিড-১৯ টেস্ট করতে হবে।
৩. প্রতিটি পোর্ট ও এন্ট্রিতে স্ক্যানিং ও করোনা শনাক্তে পরীক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে। সামাজিক সুরক্ষা সংক্রান্ত ব্যবস্থা আরও কঠোরভাবে পালন করতে হবে।
৪. চিকিৎসাব্যবস্থা শক্তিশালী করা ও বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, ধর্মীয় সমাবেশে জনসমাগম সীমিত করতে হবে।
কোভিড-১৯-এর পরীক্ষায় জনগণকে উৎসাহিত করার জন্য বিনা মূল্যে পরীক্ষা করার সুপারিশ করেছে কমিটি।
গত মঙ্গলবার সাউথ আফ্রিকায় করোনাভাইরাসের নতুন এ ধরনটি প্রথম শনাক্ত হয়। এক দিন পর এ ধরনকে ওমিক্রন নাম দেয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
শুরুতে এই ধরনটির নাম ‘বি.১.১.৫২৯’ দেয়া হলেও শুক্রবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আলোচনার সুবিধার জন্য এটির নতুন নাম দিয়েছে ‘ওমিক্রন’। বলা হচ্ছে করোনার এই ধরন খুবই উদ্বেগজনক।
ওমিক্রন কতটা প্রাণঘাতী ও সংক্রামক, সেসব জানতে কাজ করছেন বিজ্ঞানীরা, তবে আফ্রিকার দেশগুলোর ওপর ইতোমধ্যে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে পশ্চিমা দেশগুলো।
সাউথ আফ্রিকা, নামিবিয়া, জিম্বাবুয়ে, বতসোয়ানা ও লেসোটোর মতো দেশগুলোর নাগরিকের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলো।
দুই বছর আগে চীনের উহানে প্রথম শনাক্ত হওয়ার পর করোনাভাইরাসের যতগুলো ধরন এখন পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছে, তার মধ্যে ওমিক্রনেই জিন বিন্যাসে পরিবর্তন এসেছে সবচেয়ে বেশি।
এর মানে হলো করোনাভাইরাসের যেসব টিকা এ পর্যন্ত তৈরি হয়েছে, সেগুলো ওমিক্রনের ক্ষেত্রে কার্যকর নাও হতে পারে। আবার জিন বিন্যাসে পরিবর্তনের কারণে এ ভাইরাস অনেক দ্রুত ছড়ানোর ক্ষমতা রাখতে পারে।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ওমিক্রনকে তালিকাভুক্ত করেছে ‘ভ্যারিয়েন্ট অব কনসার্ন’ বা ‘উদ্বেগজনক ধরন’ হিসেবে।
সংস্থাটি এও বলছে, করোনার নতুন ধরন ‘ওমিক্রন’ কতটা প্রভাব ফেলতে পারে, সেটা বুঝতে কয়েক সপ্তাহ সময় লাগবে।
নতুন এ ভ্যারিয়েন্ট নিয়ে এরই মধ্যে বিশ্বজুড়ে হুলুস্থুল শুরু হয়েছে।
বিশ্বব্যাপী আফ্রিকান ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের গুরুত্ব অনুধাবন করে এ বিষয়ে জরুরি নির্দেশনা ও করণীয় ঠিক করতে সুইজারল্যান্ডের সরকারি সফর বাতিল করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি মাঝপথে দুবাই থেকে শনিবার রাত ১১টায় দেশে ফিরেছেন।
ওমিক্রন মোকাবিলা করার বিষয়টি নিয়ে জাতীয় পরামর্শক কমিটির সঙ্গে আগামী মঙ্গলবার জরুরি বৈঠক করবেন তিনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন