• ১৭ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৪ঠা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ৮ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

হবিগঞ্জেও নৌকার বিপর্যয়

Daily Jugabheri
প্রকাশিত নভেম্বর ৩০, ২০২১
হবিগঞ্জেও নৌকার বিপর্যয়

নিজস্ব সংবাদদাতা, হবিগঞ্জ
আওয়ামী লীগের ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত হবিগঞ্জ। তবে রোববারের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে এই উপজেলাও শোচনীয় পরাজয় ঘটেছে ক্ষমতাসীন দলটির।
হবিগঞ্জ সদর ও নবীগঞ্জ উপজেলার ২১টি ইউনিয়নের মধ্যে মাত্র ৮টিতে বিজয়ী হয়েছে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থীরা। অপর ১৩টিতে বিজয়ী হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। রোববার রাত সাড়ে ১১ টার দিকে উপজেলায় দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং কর্মকর্তাগণ বেসরকারিভাবে ফালাফল ঘোষণা করেন।
নবীগঞ্জ উপজেলার ফলাফল: এ উপজেলায় ১৩টি ইউনিয়নের মধ্যে ৪টিতে নৌকা আর অপরগুলোতে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন। পশ্চিম বড় ভাকৈর ইউনিয়নে ৪২০৬ ভোট নিয়ে বিজয়ী হয়েছেন ঘোড়া প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী রঙ্গ লাল দাশ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি নৌকার প্রার্থী সমর চন্দ্র দাশ পেয়েছেন ২৯৪০ ভোট। পূর্ব বড় ভাকৈর ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকে ৩৬০১ ভোট নিয়ে বিজয়ী হয়েছেন আক্তার হোসেন ছুবা। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি খালেদ মোশারফ ঘোড়া প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩৪২৪।
ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নে ঘোড়া প্রতীক নিয়ে মো. নোমান হোসেন ৬৭৭০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি ছায়েদ উদ্দিন মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৪৮১২ ভোট। দীঘলবাক ইউনিয়নে ছালিক মিয়া আনারস প্রতীকে ৩৯৮৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আবু সাইদ নৌকা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩৪৬০ ভোট। আউশকান্দি ইউনিয়নে দিলওয়ার হোসেন নৌকা প্রতীকে ৬৭২৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি মফজ্জুল হক চশমা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩৭৫৯ ভোট।
কুর্শি ইউনিয়নে সৈয়দ খালেদুর রহমান আনারস প্রতীকে ৫০৫৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আব্দুল মুকিত চমশা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৪৫০১ ভোট। করগাঁও ইউনিয়নে নির্মলেন্দু দাশ রানা ঘোড়া প্রতীকে ৭৭২৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি ছাইম উদ্দিন আনারস প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৬০৯১ ভোট। সদর ইউনিয়নে হাবিবুর রহমান হাবিব ৪৪৩৪ ভোট নিয়ে নৌকা প্রতীকে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি সাজু আহমেদ চৌধুরী আনারস প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩৫০৪ ভোট।

বাউসা ইউনিয়নে শেখ সাদিকুর রহমান শিশু আনারস প্রতীকে ৬২০৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি জুনেদ হোসেন চৌধুরী ঘোড়া প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৫১০৪ ভোট। দেবপাড়া ইউনিয়নে শাহরিয়ার নাদির সুমন ৫৯৬০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আ. মুহিত চৌধুরী নৌকা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩৫৮৪ ভোট। গজনাইপুর ইউনিয়নে ইমদাদুর রহমান মুকুল আনারস প্রতীকে ৬৮৬৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি শফিউল আলম চশমা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৪৫৫৯ ভোট। কালিয়ারভাঙ্গা ইউনিয়নে ইমদাদুল হক চৌধুরী আনারস প্রতীকে ৩৬১৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি নজরুল ইসলাম ঘোড়া প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২৮৩৪ ভোট। পানিউমদা ইউনিয়নে ৭৩৫৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন নৌকার প্রার্থী ইজাজুর রহমান। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি মুহিবুল হাসান আনারস প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৫৫২৯ ভোট।
হবিগঞ্জ সদর উপজেলার ফলাফল: ৮টি ইউনিয়নের মধ্যে ৪টিতে নৌকা আর ৪টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন। লোকড়া ইউনিয়নে কায়সার রহমান চশমা প্রতীকে ২৫৬৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আমিরুল ইসলাম অটোরিক্সা নিয়ে পেয়েছেন ২৫৪৭ ভোট। রিচি ইউনিয়নে আব্দুর রহিম নৌকা প্রতীকে ৭৭৮৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি সারাজ মিয়া আনারস প্রতীকে পেয়েছেন ৭২৩২ ভোট।
তেঘরিয়া ইউনিয়নে এম এ মোতালিব নৌকা প্রতীকে ২৯৬১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি সেবলু মিয়া মোটর সাইকেল নিয়ে ২৮৫৫ ভোট পেয়েছেন। পইল ইউনিয়নে সৈয়দ মইনুল হক আরিফ ঘোড়া প্রতীকে ৮৪০৪ ভোট নিয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি নৌকার প্রার্থী সাহেব আলী পেয়েছেন ৪৩৩৬ ভোট। গোপায়া ইউনিয়নে আব্দুল মন্নান ঘোড়া প্রতীকে ৫২৩৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি নৌকার প্রার্থী নুরুজ্জামান চৌধুরী পেয়েছেন ৪৩২৯ ভোট।
রাজিউড়া ইউনিয়নে বদরুল করিম দুলাল নৌকা প্রতীকে ৪৪৯০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি তাজ উদ্দিন আনারস প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩৬২৩ ভোট। নিজামপুর ইউনিয়নে তাজ উদ্দিন আনারস প্রতীক নিয়ে ৬৫৫৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আব্দুল আউয়াল নৌকা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৬০৬১ ভোট। লস্করপুর ইউনিয়নে মাহবুবুর রহমান হিরো নৌকা প্রতীকে ৪৫০৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আমজাদ আলী ঘোড়া প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩৯১৭ ভোট।
জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. সাদেকুল ইসলাম জানান, হবিগঞ্জ সদর উপজেলা ও নবীগঞ্জ উপজেলায় শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এজন্য তিনি প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান।

সংবাদটি শেয়ার করুন