• ৩রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ১৯শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ , ২২শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

সিলেটে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষ : নিহত ১

Daily Jugabheri
প্রকাশিত এপ্রিল ২৬, ২০২২
সিলেটে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষ : নিহত ১

যুগভেরী রিপোর্ট
সিলেট নগরীর টিলাগড় পয়েন্টে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে জুনেল নামে এক নেতা নিহত হয়েছে।
গত ২৩ এপ্রিল শনিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।
শাহপরান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শহিদুল ইসলাম জানান, সিলেট-১ আসনের সংসদ সদস্য ড. একে আব্দুল মোমেন সমর্থিত গ্রুপের সঙ্গে সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শফিকুর রহমান চৌধুরীর গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় সংঘর্ষ চলাকালে শফিকুর রহমান চৌধুরী গ্রুপের জুনেল গুলিতে নিহত হয়।
নিহত জুনেল মেজর টিলা এলাকার লুৎফুর  রহমানের ছেলে। জুনেল সিলেট এমসি কলেজের মাস্টার্স-এর অধ্যয়নরত ছিলেন। তিনি জুনেলকে তাদের গ্রুপের সক্রিয় কর্মী বলে দাবী করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শফিকুর রহমান চৌধুরী।
স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে, মূলতঃ এমপি ড. মোমেন গ্রুপ ও সভাপতি শফিকুর রহমান গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে টিলাগড় এলাকার আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। ছাত্র লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে কিছু দিন ধারাবাহিকভাবে ধরে দুটি গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়াসহ উত্তেজনা চলে আসছিল।
গত ২৩ এপ্রিল ২০২২ শনিবার রাতে জুনেলসহ আরো কয়েক জন টিলাগড় পয়েন্টে একটি দোকানে বসে চা খেয়ে আড্ডা দিচ্ছিলেন। হঠাৎ করে এমপি গ্রুপের সদস্যরা এসে তাদের উপর আক্রমণ চালায় এবং গোলাগুলি শুরু করে। এ সময় প্রতিপক্ষের একটি গুলি জুনেলের বুকে লাগে। ফলে, তিনি ঘটনাস্থলেই লুটিয়ে পড়েন।
গোলাগুলি শুরু হলে তার সাথে থাকা কর্মীরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন জুনেলকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন জুনেল।
এ ঘটনায় জুনেলের পিতা বাদি হয়ে ২৫ এপ্রিল ২০২২ তারিখে ৭ জনকে আসামী করে শাহপরান থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।
মামলার আসামিরা হলেন- (১) জাকির খান, পিতা- আতাউর রহমান, সাং ওসমানীনগর সিলেট, (২) গুলজার আহমেদ, পিতা- আরশ আলী,  সাং- শাহী ঈদগা সিলেট, (৩) মোস্তাফিজুর রহমান, পিতা- সোনা মিয়া, সাং-টুলটিকর টিলাগড় সিলেট, (৪) খালেদ আহমদ, পিতা- ময়না মিয়া, সাং- শিব্গঞ্জ সিলেট, (৫) জুবের আহমদ, পিতা- বাসিত মিয়া, সাং- নাজির বাজার, সিলেট, (৬) খালিক মিয়া, পিতা- মখলিছ মিয়া, সাং- শাপলাবাগ, টিলাগড়, সিলেট, (৭) হাবিব হোসেন, পিতা- আমিন মিয়া, সাং- বালুচর, সিলেট।
প্রসঙ্গতঃ উল্লেখ্য যে, সিলেটের ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপিঠ এমসি কলেজ, সিলেট সরকারি কলেজ, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ও ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে অধ্যায়নরত প্রায় ২০/২৫ হাজার শিক্ষার্থীদের অবস্থান টিলাগড়ের বিভিন্ন মহল্লায়। বিশাল সংখ্যক শিক্ষার্থীরা টিলাগড়ে বসবাস করায় ঐ এলাকায় ছাত্র সংগঠনগুলোর আধিপত্য বহু আগে থেকেই বিদ্যমান।
টিলাগড় এলাকায় সরকার দলীয় ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দুটি প্রভাবশালীর নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। একটির নিয়ন্ত্রণ করেন সিলেট-১ আসনের এমপি, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন ও অপরটির নিয়ন্ত্রনে রয়েছেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শফিকুর রহমান চৌধুরী।

সংবাদটি শেয়ার করুন