• ১৬ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ২রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ১০ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

পূর্ব শত্রুতার জের ধরে সিলেটে পোল্ট্রি ফার্মে হামলা ও অগ্নিসংযোগ, প্রায় ৫০ লক্ষ টাকার ক্ষতি, আহত ১

Daily Jugabheri
প্রকাশিত ডিসেম্বর ১৫, ২০২২
পূর্ব শত্রুতার জের ধরে সিলেটে পোল্ট্রি ফার্মে হামলা ও অগ্নিসংযোগ, প্রায় ৫০ লক্ষ টাকার ক্ষতি, আহত ১

স্টাফ রিপোর্টার ::::: নগরীর দক্ষিণ সুরমা এলাকার কদমতলীতে একটি পোল্ট্রি ফার্মে হামলা ও অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল রাত ৮টার দিকে ‘মতিন পোল্ট্রি ফার্মে’ এই হামলা ও অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ফার্মের প্রায় ৫০ লক্ষ টাকার ক্ষয় সাধন হয়েছে বলে জানা গেছে। হামলায় গুরুতর আহত হয়েছেন পোল্ট্রি ফার্মের স্বত্ত্বাধিকারী প্রবীন বিএনপি নেতা মোঃ আব্দুল মতিন চৌধুরী। তিনি নগরীর কলাপাড়া এলাকার দুর্বার-৯৩ নং বাসায় থাকেন। তার বাড়ি মৌলভীবাজারের কুলাউড়া থানার দিলদারপুর গ্রামে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল রাত ৮াটার দিকে ছাত্রলীগ ক্যাডাররা নগরীর কদমতলী এলাকায় ‘মতিন পোল্ট্রি ফার্মে’ গিয়ে ছাত্রদল নেতা আব্দুল মুহাইমিন চৌধুরীকে খুঁজতে থাকে। তখন মুহাইমিনের পিতা মো: আব্দুল মতিন তাদেরকে জানান, তার ছেলে যুক্তরাজ্যে আছে। এতে ছাত্রলীগ ক্যাডাররা ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে বেধড়ক মারধর করে। হামলায় গুরুতর আহত হন তিনি। এসময় ছাত্রলীগ ক্যাডাররা পেট্রোল ঢেলে পোল্ট্রি ফার্মে আগুন ধরিয়ে দেয়। সাথে সাথে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। তখন স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে মো: আব্দুল মতিনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করেন। তার মাথায় গুরুতর আঘাত রয়েছে এবং আঙ্গুল ভেঙ্গে গেছে বলে জানা গেছে। তবে তিনি শঙ্কামুক্ত রয়েছেন।
খবর পেয়ে প্রায় আধা ঘন্টা পর সিলেট ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে এসে স্থানীয়দের সহযোগিতায় আগুনকে নিয়ন্ত্রন করে। তবে এর আগেই প্রায় ৫০০০ বড় মুরগী, ডিম ও ফার্মের ঘর পুড়ে যায়। অগ্নিকান্ডে প্রায় ৫০ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয় বলে জানা গেছে।
এ ব্যাপারে আহত মো: আব্দুল মতিন জানান, তার ছেলের সাথে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এ অগ্নিসংযোগ ও হামলা চালিয়েছে ছাত্রলীগ ক্যাডাররা। আব্দুল মুহাইমিন চৌধুরী স্টুডেন্ট ভিসা নিয়ে যুক্তরাজ্যে গিয়ে পড়াশোনা করছেন। দেশে থাকতে তিনি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল সিলেট জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীদের হামলা-মামলা ও পুলিশের হয়রানী থেকে রক্ষা পেতে শেষ পর্যন্ত পড়াশোনার উদ্দেশ্যে সে ইংল্যান্ডে চলে যায়। তবুও রেহাই নেই। আব্দুল মুহাইমিন চৌধুরী যুক্তরাজ্যে যাওয়ার পরপরই তার বিরুদ্ধে মিথ্যে মামলা দায়ের করা হয়। পুলিশ ও ছাত্রলীগ ক্যাডাররা তাকে খঁুঁজতে থাকে। ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীরা সপ্তাহখানেক আগে আমার ফার্মে এসে বিরাট অংকের চাদা দাবী করেছে। আমি অপরাগতা প্রকাশ করলে তারা পোল্ট্রিফার্মে আগুন দিয়ে পুড়ে ফেলার ধামকি দিয়ে যায়। এদিকে, আব্দুল মুহাইমিন চৌধুরীকে দেশে ফিরিয়ে এনে তাদের হাতে তুলে না দিলে পরিবারের সবাইকে মেরে ফেলার ধামকি দিয়ে আসছে স্থানীয় ছাত্রলীগ ক্যাডাররা। ঘটনাটি তিনি থানা পুলিশকে অবহিত করলেও কোন সহযোগিতা করছেনা তারা। তাই ছাত্রলীগ ক্যডাররা বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। এরই ধারাবাহিকতায় ছাত্রলীগ ক্যাডাররা আমার পোল্ট্রি খামার আগুন দিয়ে পুড়ে ফেলেছে এবং আমাকে মারধর করেছে। তিনি আরও জানান, নিজের জীবন নিয়ে ভাবছেননা তিনি। জীবন জীবিকার মাধ্যম প্রেল্ট্রি খামার জালিয়ে তাকে পথে বসিয়ে দিয়েছে ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীরা। সন্তানের পড়াশোনার খরচ চালানো তার জন্য কষ্টসাধ্য হয়ে উঠেছে। এতসবের মাঝেও তার পুত্র আব্দুল মুহাইমিন চৌধুরীর জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে তিনি শংকায় রয়েছেন। দেশে ফিরলে ছাত্রলীগ ক্যাডাররা তাকে ধরে নিয়ে অত্যাচার করবে নয়তো মিথ্যে অভিযোগে জেল জুলুমের শিকার হবে। যেখানে প্রাণ নাশের সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে। এ ঘটনায় গতকাল রাতে তিনি দক্ষিণ সুরমা থানায় অভিযোগ করতে গেলে পুলিশ তাকে ফিরিয়ে দিয়েছে। বলেছে তদন্ত সাপেক্ষে দেখা যাবে।
তবে এ ব্যাপারে দক্ষিণ সুরমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানান, কদমতলী এলাকায় ‘মতিন পোল্ট্রি ফার্মে’ দোকানে আগুনে পুড়ছে শুনে দক্ষিণ সুরমা থানার একটি টিম সেখানে যায়। ফায়ার সার্ভিসের সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনা হয়। তবে কে বা কারা এ আগুন লাগিয়েছে- এ ব্যাপারে তারা বিছুই বলতে পারেন না। কেউ অভিযোগও নিয়ে আসেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন