• ১৬ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ২রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ১০ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

ঢাকাদক্ষিণ বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের অধ্যক্ষের বিদায় সংবর্ধনা

Daily Jugabheri
প্রকাশিত মার্চ ২৬, ২০২৪
ঢাকাদক্ষিণ বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের অধ্যক্ষের বিদায় সংবর্ধনা

সমাজের শিক্ষার উন্নয়নে ও শিক্ষা
প্রদানে রাখা অবদান চিরস্থায়ী :  নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি


শিক্ষা মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি বলেছেন, অধ্যক্ষ রেজাউল আমিন দীর্ঘ ২৫ বছর দক্ষতা ও সফলাতার সাথে অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন করে গেছেন। তাঁর নেতৃত্বে প্রতিষ্ঠানটি একাধিক বার উপজেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হয়েছে। শিক্ষাদানের সাথে শিক্ষার মানের উন্নয়নেও প্রতিষ্ঠানটির সুনাম বৃদ্ধি করতে তিনি সক্ষম হয়েছেন। নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, যারাই সমাজের শিক্ষার উন্নয়নে ও শিক্ষার্থীদের শিক্ষা প্রদানে অবদান রাখছেন তা চিরস্থাযী। অধ্যক্ষ রেজাউল আমিন এর অবদানও চিরস্থায়ী হয়ে থাকবে।
সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার শত বছরের প্রাচীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঢাকাদক্ষিণ বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ রেজাউল আমিনের স্বেচ্ছায় অবসরজনিত বিদায় উপলক্ষে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন। গতকাল সোমবার বেলা ১১টায় ঢাকাদক্ষিণ বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ প্রাঙ্গণে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ রফিক আহমদ, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য সৈয়দ মিছবাহ উদ্দিন, মাহমুদুস ছামাদ ফারজানা চৌধুরী গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল জলিল। প্রধান অতিথি আরো বলেন, অধ্যক্ষের নেতৃত্বে শিক্ষকরা ভালো কাজ করেছেন এবং গভর্নিং বর্ডি সঠিক ভাবে দায়িত্ব পালন করেছেন বলে প্রতিষ্ঠানটি এগিয়ে গেছে। পরবির্ততে যারা আসবেন তারা প্রতিষ্ঠনটিকে আরো এগিয়ে নিয়ে যাবেন বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।
মার্চ মাস আমাদের জাতীয় জীবনে একটি গুরুত্বপূর্ণ মাস, বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ, বঙ্গন্ধুর জন্মদিন, ২৫ মার্চ পাকিস্তানীদের গণহত্যা ও ২৬ মার্চ স্বাধীনতার ঘোষণা এই মার্চ মাসেই ঘাটেছে উল্লেখ করে তিনি সকল শহীদের স্মরণ করে বলেন, শিক্ষা ক্ষেত্রে শেখ হাসিনা সরকার যুগান্তকারী উন্নয়ন করেছে। সরকার এখন স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে জ্ঞান বিজ্ঞান ও কারিগরি শিক্ষায় দক্ষ মানুষ তৈরিতে কাজ করছে।
বিদায়ী অতিথির বক্তব্যে অধ্যক্ষ রেজাউল আমিন আবেগআপ্লুত হয়ে পড়েন। তিনি বলেন, প্রতিষ্ঠানের জন্য-শিক্ষার্থীদের কল্যাণে সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছেন। কোথাও কার্পণ্য করেননি। ঘুমালেও এই প্রতিষ্ঠানকে স্বপ্নে দেখেন তিনি। অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, প্রতিষ্ঠানের পাঠদানের পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের কেউ ক্লাস ফাঁকি দিয়ে বাজারে বসে আছে কি-না দেখতে অধ্যক্ষ ঢাকাদক্ষিণ বাজারে গিয়ে খুঁজতেন। বর্তমান সময়ে যা বিরল। চলে গেলেও কর্মের মাধ্যমে তিনি বেঁচে থাকবেন। ঢাকাদক্ষিণ বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের গভনিং বডির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোহাম্মদ আলা উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রতিষ্ঠানের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ কাওছার আহমদ কয়েছ। প্রভাষক শহিদুল ইসলামের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো বক্তব্য রাখেন, বিদ্যালয় গভনিং বডির সদস্য নকুল রাম মালাকার, সেলিম আহমদ, কামরুজ্জামান, সাবেক সদস্য শেখ কামরুজ্জামান কামরুল, সহকারী অধ্যাপক আলমগীর ইমানি, সিনিয়র শিক্ষক বিধান পাল, শিক্ষক আবু তাহের সিদ্দিকী, আক্তার হোসেন। শিক্ষার্থীদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন সপ্তম শ্রেণীর শিক্ষার্থী ফাতেমা জান্নাত আছিয়া, নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী তসনিম আক্তার লামিশা, অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী নিহা চন্দ্র উপমা। শিক্ষকদের পক্ষ থেকে মানপত্র পাঠ করেন সুমি দেব মন্টি ও শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে মাহিরা ইয়াসমিন মানপত্র পাঠ ও প্রদান করেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কুরআন তেলাওয়াত করেন দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাজিদুর রহমান ও গীতা পাঠ করেন নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী স্বপ্নীল রায়। এসময় অন্যদের উপস্থিত ছিলেন, ঢাকাদক্ষিণ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের অধ্যক্ষ ইসমাইল উদ্দিন খান, বিএনকে উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের অধ্যক্ষ সামছুল মাওলা, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলী আকবর ফখর, গভর্নি বডির সদস্য মাস্টার আব্দুল জলিল, শিক্ষানুরাগী আবদুস শহীদ খান জিলা, আব্দুর নূর মসলাই, বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক কাজল কান্তি দাস, ঢাকাদক্ষিণ সরকারি কলেজের প্রভাষক ইউনুছ চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক নাজিমুল হক লস্কর, প্রচার ও প্রকাশনা আলীম উদ্দিন বাবলু, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ফরহাদ আহমদ, সহ -দফতর সম্পাদক হোসেন আহমদ, গোলাপগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফারহান মাসউদ আফছর, সমাজসেবক বদরুল আলম প্রমুখ। এছাড়া অনুষ্ঠানে উপজেলার বিভিন্ন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, সহকারি শিক্ষক, বিশিষ্টজন, অভিভাবক ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। এসময় বিদায়ী অধ্যক্ষকে পুষ্প মাল্য, সম্মাননা স্মারক, মানপত্র ও উপহার তুলে দেন অতিথিবৃন্দ, প্রধান শিক্ষক, সহকারী শিক্ষক, প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা।   প্রেস বিজ্ঞপ্তি

 

সংবাদটি শেয়ার করুন